আমার ভারতকে জানুন!

আমার ভারতকে জানুন!
আমার ভারতকে জানুন!

আওরঙ্গাবাদ ট্রাভেল গাইড

আওরঙ্গাবাদ ট্রাভেল গাইডমুর্তজা নিজাম শাহ দ্বিতীয় এর মূখ্যমন্ত্রী মালিক আম্বার ১৬১০ সালে খড়কি নামক এক গ্রামে আওরঙ্গাবাদ শহর প্রতিষ্ঠা করেন। ১৬২৬ খৃস্টাব্দে মালিক আম্বারের পুত্র ফতেহ খান সিংহাসনে বসেন এবং আওরঙ্গাবাদের নাম দেন ফতেহপুর। আওরঙ্গজেব যখন দাক্ষিনাত্যের শাসনকর্তা নিযুক্ত হন তখন তিনি এই শহরকে তার রাজধানী করেন এবং নামকরণ করেন আওরঙ্গাবাদ। এই শহর বিভিন্ন রাজবংশের অধীনে ছিল এবং দেশের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ প্রাচীন নগরীগুলির একটি।. তাজমহলের রেপ্লিকার উপর নির্মিত এই স্মারকস্তম্ভটি ১৬৭৯ সালে আওরঙ্গজেবের পুত্র তার মা রাবিয়া দুররানীর স্মৃতির সম্মানে নির্মান করেন। এটি মুঘল স্থাপত্য সৌন্দর্যের আরেকটি উদাহরণ..

বেঙ্গালোর ট্রাভেল গাইড

বেঙ্গালুরুকেমপে গৌড়া কর্ণাটক রাজ্যের রাজধানী বেঙ্গালোর প্রতিষ্ঠা করেন। এটা একটি প্রধান মহানগরী এবং দেশের শিল্প ও ব্যাবসা-বানিজ্যের কেন্দ্র। ষোড়শ শতকে এই শহরের গোড়াপত্তন শুরু হয়। প্রায় দুই শতক পরে এটা হাইদার আলী ও টিপু সুলতানের রাজধানীতে পরিণত হয়। লালবাগের বেলারী রোড ধরে হাটলে নগরীর প্রাচীন ধ্বংশাবশেষ চোখে পড়বে। . সিটি মার্কটের কাছাকাছি যে দুর্গের অবশেষ রয়েছে তা ছিল টিপু সুলতানের গ্রীষ্মকালীন প্রাসাদ। এই সুবিশাল প্রাসাদ দেখতে অত্যন্ত চমতকার। এখানে একটি যাদঘর রয়েছে যেখানে টিপু সুলতান ও হাইদার আলীর ব্যবহৃত জিনিসপত্র রয়েছে..

কোলকাতা ভ্রমণ গাইড

ভিক্টোরিয়া স্মৃতিস্তম্ভকোলকাতা ভ্রমণ গাইড – কোলকাতা ভারতের সবচেয়ে বড় মহানগরী শহর যার লোকসংখ্যা দশ মিলিয়নের উপরে। ঠাসাঠাসিপূর্ণ ও জনবহুল শহরগুলির একটি হওয়াতে জায়গাটি নানা পেশা ও অঞ্চলের মানুষ দ্বারা পূর্ণ। ব্যস্ত রাস্তা ও বাজারগুলোতে চলাচল অসুবিধাজনক হলেও অভ্যস্ত হয়ে গেলে সবকিছুই একটা সুন্দর অভিজ্ঞতার জন্ব দেয়। . নগরীর উত্তর প্রান্তে ৪৮ মিটার উচ্চ একটি স্তম্ভ দেখতে পাওয়া যায় যাকে অচটারলনী মনুমেন্ট বলে। এটাও দর্শনার্থীদের জন্য অত্যন্ত চিত্তাকর্ষক। এই মনুমেন্টকে বর্তমানে শহীদ মিনারও বলে..

 

চেন্নাই ট্রাভেল গাইড

চেন্নাই ভ্রমণ গাইড

পূর্বতন মাদ্রাজ শহর বর্তমানের চেন্নাই হলো তামিল নাড়ু রাজ্যের রাজধানী শহর। এটা দেশের মধ্যে চতুর্থ বৃহত্তম শহর এবং তুলনামূলক অন্যান্য মেট্রোপলিটান শহরের তুলনায় কম জনাকীর্ণ ও দুষিত। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী এখানে এসে কারবার শুরু করে এবং উন্নতির জন্য এখান থেকে যাত্রা শুরু করে। সর্বশেষ বিজয়নগর শাসক চন্দ্রগিরির রাজা কর্তৃক প্রদত্ত একখন্ড জমির উপর ১৬৩৯ সালে এই নগর প্রতিষ্ঠিত হয়। . পরবর্তী আকর্ষণীয় স্থান হলো পার্থসারথী মন্দির যা নির্মিত হয়েছিল অষ্টম শতকে পল্লভ শাসকদের সময়ে। ট্রিপ্লিকেন হাই রোডে এটি অবস্থিত। প্রভু কৃষ্ণের উদ্দেশ্যে এই মন্দির নিবেদিত..

দিল্লী ট্রাভেল গাইড

দিল্লী ট্রাভেল গাইডভারতের রাজধানী দিল্লী ভারতে ভ্রমণীয় স্থানসমূহের মধ্যে অন্যতম প্রধান স্থান। ‘দিল্লী’ শব্দটি ধিল্লিকা শব্দ থেকে এসেছে যার অর্থ মধ্যযুগের প্রথম শহুরে ব্যবস্থা। মেহরাউলি দিল্লীর দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্তে অবস্থিত। এটাও দেহালি বা দিল্লি নামকরণের কারণ। অন্য একটি নাম হলো যোগিনীপুরা একজন মহিলা ধার্মিকার নামের সাথে যুক্ত যিনি একসময় এখানে বাস করতেন। . জায়গাটির প্রাচীন শহুরে অবস্থান সম্পর্কেও জানা যায় যার নাম ইন্দ্রপ্রসাতা এবং এর অবস্থান ছিল যমুনার তীরে। ধারনা করা হয় ভারতীয় মহাকাব্য মহাভারতের রূপকথার বীর পান্ডব ভ্রাতাদের দ্বারা এটা প্রতিষ্ঠিত হয়..

গোয়া ট্রাভেল গাইড

গোয়া ভ্রমণ গাইডসোনালী কঙ্কন উপকুলে আরব সাগর জুড়ে বিখ্যাত গোয়া অবস্থিত। কঙ্কনী শব্দ ‘গোইয়ান’ থেকে এর নামকরণ হয়েছে যার অর্থ এক টুকরো লম্বা ঘাস, ভারতের শ্রেষ্ঠ পর্যটক আকর্ষণকারী স্থানগুলির মধ্যে অন্যতম। এটা ‘প্রাচ্যের মুক্তা’ নামে সুপরিচিত। এটা জমকালো মৌর্য সাম্রাজ্যের অংশ ছিল খৃস্টপূর্ব তৃতীয় শতকে এবং ক্রমে এর শাসন দন্ড কোলাপুরের সাতবাহানা থেকে বাদামীর চালুক্যদের হস্তগত ছিল প্রায় একশতক স্থায়ী বিজয়নগর সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত।. ১৪৬৯ সালে বিজাপুরের আদিল শাহ গোয়া শাসন শুরু করেন। পরবর্তী বছরগুলিতে ডাচ, ইংরেজ, ফরাসী …

হাইদেরাবাদ ট্রাভেল গাইড

হায়দ্রাবাদ ভ্রমণ গাইডকুতুব শাহী শাসকরা হাইদেরাবাদ শহরের গোড়াপত্তন করেন। ১৫৮৯ সালে মুহাম্মদ কুতুব শাহ তাঁর রাজধানী গোলকুন্ডা থেকে নদী তীরবর্তী মুসীতে সরিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করেন। এখানে তিনি তাঁর রাজত্ব বর্ধিত করার সংকল্প করেন যার ফলে এই আকর্ষণীয় শহরের পত্তন। হাইদেরাবাদ শহরে তুলনাহীন রাজপ্রাসাদ আর মসজিদ সমূহ ভারতের অন্যান্য শহরগুলি একে আলাদা করেছে। হাইদেরাবাদের বিশেষ বৈশিষ্ট হলো এটাই দক্ষিণের একমাত্র শহর যেখানে উদু ভাষা প্রচলিত।. এই পার্কটি দেশের বৃহত্তম চিড়িয়াখানাগুলির মধ্যে অন্যতম। এখানে প্রচুর জীব-জানোয়ার ও পাখি ..

জয়পুর ট্রাভেল গাইড

জয়পুর ভ্রমণ গাইডপিঙ্ক সিটি’ নামে সুপরিচিত জয়পুর ভারতের রাজস্থান রাজ্যের রাজধানী। রাজস্থান ভারতের পর্যটন স্থানগুলির একটিতে যুক্ত হয়েছে ভারতীয় গোল্ডেন ট্রায়াঙ্গলের তৃতীয় কোণ হিসেবে। জয়পুর দিল্লীর দক্ষিণ-পশ্চিমে ৩০০ কি.মি. দুরে, তাজমহল খ্যাত আগ্রা থেকে পশ্চিমে ২০০ কি.মি. দুরে অবস্থিত। এই প্রাচীন জয়পুর শহর সাতটি গেট দ্বারা পরিবেষ্টিত তার মধ্যে চান্দপোল, সঙ্গনেরী এবং আজমেরী উল্লেখযোগ্য। . নগরীর পিঙ্ক অংশটি পুরাতন দেয়ালঘেরা অংশে অবস্থিত। উত্তর পূর্ব অংশে ঐতিহ্যবাহী ও আধুনিকতার সংমিশ্রণ ঘটেছে, রাজকীয় প্রাসাদ আর মন্দিরসমূহ যুক্ত হয়েছে আধুনিক কংক্রিটের তৈরী ভবনের সাথে..

জম্মু ও কাশ্বীর ট্রাভেল গাইড

জম্মু ও কাশ্বীর ট্রাভেল গাইডচিত্তহারী পর্বতমালা এবং মনোমুগ্ধকর ভূ-প্রকৃতির কারণে জম্মু ও কাশ্বীর ‘ভারতের গর্ব’ হিসেবে আখ্যায়িত। এর অবস্থান দেশের সর্ব উত্তর-পশ্চিমে। এই ভূমি বিশাল চমতকার পর্বতমালা, বনভূমি ও বনভূমি বেষ্টিত জায়গার সমন্বয়ে গঠিত। এটা ভারতের সুন্দরতম পর্যটন আকর্ষণ কেন্দ্রগুেলির অন্যতম। . তাওয়ি নদীর তীরে জম্মু অবস্থিত। লোককাহিনীতে বলা হয় এই জায়গা নবম শতকে রাজা জাম্বুলোচন দ্বারা প্রতিষ্ঠিত কিন্ত্ত এবিষয়ে তেমন কোন প্রমাণ পাওয়া যায়না। শিখরা রাজপুতদের কাছ থেকে দখল নেয়ার পর গুলাব সিং জম্মুকে কাশ্বীরের সাথে যুক্ত করেন..

মহাবালিপুরাম ট্রাভেল গাইড

মহাবালিপুরাম ট্রাভেল গাইডমহাবালিপুরাম তামিলনাড়ু রাজ্যে অবস্থিত এবং পূর্বের মাদ্রাজ বর্তমানের চেন্নাই থেকে ৬০ কি.মি. দুরত্বে এর অবস্থান। বঙ্গোপসাগরের তীরে অবস্থিত এই জায়গায় সৈকত মন্দির থাকায় প্রতি বছর হাজার হাজার পর্যটক এখানে পরিভ্রমণে আসেন।. কথিত আছে, অর্জুন গঙ্গা নদীর তীরে অনুশোচনার জন্য আসেন এই আশায় যে, শিব তাঁর প্রিয় অস্ত্র মন্ত্রবল অথবা তীর তাঁকে দান করবেন। বিশাল পাথরের উপর খোদাইকৃত অর্জুনের অনুশোচনারত মুখ হিমালয় থেকে উতসারিত গঙ্গা নদীর পৌরাণিক কাহিনীতে পরিণত হয়েছে। পাথরের উপরিভাগে বিভিন্ন প্রাণীর অনুপুঙ্খ খোদাইকাজ যেন প্রাকৃতিক প্রদর্শন..

মুম্বাই ট্রাভেল গাইড

মুম্বাই ট্রাভেল গাইডমুম্বাই এর বন্দর ভারতের মধ্যে সবচেয়ে ব্যস্ততম। মুম্বাই নামের উতপত্তি হয়েছে স্থানীয় দেবী মুম্বা দেবীর নামানুসারে, এর পূর্ব নাম ছিল বোম্বে। বৃটিশের পূর্বসূরী পর্তুগীজরা নামটিকে ‘বম বাইম’ উত্তম উপসাগর ভাবতে পছন্দ করতো শেষ পর্যন্ত বোম্বেই নামে ডাকত। শহরটি পশ্চিম উপকুলের অংশ এবং গুজরাট থেকে কেরালা পর্যন্ত বিস্তৃত।. সাতটি দ্বীপ কোলাবা, মাহিম, মাজগাওন, পারেল, ওরলি, গিরগাও এবং ডংরির অংশ মিলে মুম্বাই গঠিত হয়েছে। সব মতবাদ ও সংস্কৃতির মানুষ এখানে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে এবং এই সংমিশ্রণের কারনে মুম্বাই এক মনোমুগ্ধকর নগরীতে পরিণত হয়েছে..

পুনে ট্রাভেল গাইড

পুনে ট্রাভেল গাইডসাধারণভাবে মহারাষ্ট্রের সাংস্কৃতিক রাজধানী নামে পরিচিত পুনে মুম্বাই এর ১৭০ কি.মি. দক্ষিণে অবস্থিত। স্তদশ শতকের মহান মারাঠা শাসক ছত্রপতি শিবাজি যিনি এখানকার শিবনেরী দুর্গে জন্বগ্রহণ করেন তাঁর মূল কেন্দ্র ছিল এই শহর। পুনে পেশওয়ার একটি আসনে পরিনত হয় এবং যার অধীনে মারাঠা শক্তি একটি প্রধান রাজনৈতিক শক্তিতে পরিনত হয়। পেশওয়াগন শিল্পের পৃষ্ঠপোশক ছিলেন এবং শহরকে মন্দির, বাগিচা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সমৃদ্ধ করেন। . এখানেই লোকমান্য বাল গঙ্গাধর তিলক স্বাধীনতা আন্দোলনের সময়ে স্বদেশী নীতির সূচনা করেন। আজ পুনে ভারতের একটি প্রধান মহানগরী যেখানে ফিল্ব ও টেলিভিশন ইনস্টিটিউট এবং জাতীয় প্রতিরক্ষা একাডেমীর মূল কেন্দ্র রয়েছে। ..

থিরুভানানথাপুরাম ট্রাভেল গাইড

তিরুবনানতাপুরাম ভ্রমণ গাইডভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যে অবস্থিত থিরুভানানথাপুরাম ভ্রমণের জন্য একটা মনোহর জায়গা। এটা দেশের পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন ও সুপরিকল্পিত শহরগুলির মধ্যে একটি। কেরালার সবটুকু সৌন্দর্য এই শহরে ফুটে উঠেছে এর বিস্ময়কর সবুজ শস্যভূমি ও মনোমুগ্ধকর সাগর সৈকতের জন্য। এই শহর চমতকারভাবে রাজ্যের সংস্কৃতিকে তুলে ধরেছে। নগরীতে প্রবেশের সীমান্তে এর মনোহারী রং যে কাউকে বিস্মিত করবে।. লাল টাইলের ছাদ, সীমাহীন তাল গাছের সারি, হতবুদ্ধিকরা সরু ও আঁকাবাঁকা রাস্তা এবং সর্বোপরি সাগর এক মনোমুগ্ধকর সংমিশ্রণ তৈরী করেছে। এর মনোহারিত্ব ও চমতকারিত্ব ..

Read more:
মুম্বাই ট্রাভেল গাইড

মুম্বাই এর বন্দর ভারতের মধ্যে সবচেয়ে ব্যস্ততম। মুম্বাই নামের উতপত্তি হয়েছে স্থানীয় দেবী মুম্বা দেবীর নামানুসারে, এর পূর্ব নাম ছিল Read more

আওরঙ্গাবাদ ট্রাভেল গাইড

মুর্তজা নিজাম শাহ দ্বিতীয় এর মূখ্যমন্ত্রী মালিক আম্বার ১৬১০ সালে খড়কি নামক এক গ্রামে আওরঙ্গাবাদ শহর প্রতিষ্ঠা করেন। ১৬২৬ খৃস্টাব্দে Read more

চেন্নাই ভ্রমণ গাইড

পূর্বতন মাদ্রাজ শহর বর্তমানের চেন্নাই হলো তামিল নাড়ু রাজ্যের রাজধানী শহর। এটা দেশের মধ্যে চতুর্থ বৃহত্তম শহর এবং তুলনামূলক অন্যান্য Read more

দিল্লী ট্রাভেল গাইড

ভারতের রাজধানী দিল্লী ভারতে ভ্রমণীয় স্থানসমূহের মধ্যে অন্যতম প্রধান স্থান। ‘দিল্লী’ শব্দটি ধিল্লিকা শব্দ থেকে এসেছে যার অর্থ মধ্যযুগের প্রথম Read more

জয়পুর ট্রাভেল গাইড

পিঙ্ক সিটি’ নামে সুপরিচিত জয়পুর ভারতের রাজস্থান রাজ্যের রাজধানী। রাজস্থান ভারতের পর্যটন স্থানগুলির একটিতে যুক্ত হয়েছে ভারতীয় গোল্ডেন ট্রায়াঙ্গলের তৃতীয় Read more

কলকাতা ভ্রমণ গাইড

কোলকাতা ভারতের সবচেয়ে বড় মহানগরী শহর যার লোকসংখ্যা দশ মিলিয়নের উপরে। ঠাসাঠাসিপূর্ণ ও জনবহুল শহরগুলির একটি হওয়াতে জায়গাটি নানা পেশা Read more

পাতাগুলিঃ 1 2