জহর বাহরু ভ্রমণ গাইড

জহর বাহরু হলো দেশের দক্ষিণে অবস্থিত মালয়েশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর। এই শহর মালয়েশিয়ার অন্যান্য বৈশিষ্টমন্ডিত শহর ও রাজ্যের সাথে তুলনীয় না হলেও জহর বাহরু দেশের একটা গুরুত্বপূর্ণ শিল্প ও বানিজ্যের কেন্দ্রবিন্দু। জহর বাহরু তার পুরনো ঐতিহ্য ও জীবন প্রণালী এখনও ধরে রেখেছে যা একে বিশেষ চিত্র ও শান্তিপূর্ণ বৈশিষ্ট দান করেছে।

জহর বাহরু আসার উপায়

স্থলপথে
জহর বাহরু যাওয়ার জন্য ট্যাক্সি হচ্ছে সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম। দুপুর ১২ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টার মধ্যে ভ্রমণের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ৫০% ভাড়া দিতে হয়। এছাড়া কিছু এক্সপ্রেস বাস রয়েছে যেগুলির ভাড়া অনেক সাশ্রয়ী। মালয়েশিয়ান রেলওয়ের জহর বাহরুর মধ্য দিয়ে ট্রেন সার্ভিস রয়েছে।

জলপথ

সিঙ্গাপুরবাসীদের কাছে বর্তমানে ফেরী সার্ভিস পছন্দনীয় হয়ে উঠেছে জহর বাহরু ও মালয়েশিয়া যাওয়ার ক্ষেত্রে। প্রতিদিন এই ফেরী সার্ভিস পরিচালিত হয় সিঙ্গাপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে অবস্থিত চাঙ্গি ও জহর বাহরুর তানজুং বেলাংকর বন্দরের মধ্যে।

বিমানপথ

জহর বাহরুরর সেনাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে প্রধান বিমান সংস্থাগুলির আভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালিত হয়।

জহর বাহরুর হোটেলে আবাসন ব্যবস্থা

জহর বাহরুতে সবরকম বাজেটের হোটেল ব্যবস্থা রয়েছে। আপনার যদি ভাল বাজেট থাকে তাহলে ক্রাউন প্লাজা জহর বাহরু হোটেল অথবা পুতেরী প্যান প্যাসিফিক জহর বাহরু হোটেলে আবাসন সুবিধা নিতে পারেন। আর যদি সীমিত বাজেট হয় তাহলে লারকিন জেলায় অবস্থিত সেরী মালয়েশিয়া হোটেল জহর বাহরুতে রুম বুক করতে পারেন।

জহর বাহরুর প্রধান আকর্ষণসমূহ

এনডাও রমপিন রাষ্ট্রীয় পার্ক
জহর ও পাহাঙ সীমান্তে অবস্থিত এনডাও-রমপিন পার্ক মালয়েশিয়ার দুইটি বৃহত্তম পার্কের মধ্যে অন্যতম যার আয়তন প্রায় ৮০,০০০ হেক্টর। এই পার্ক বহুবিচিত্র উদ্ভিদ ও প্রাণীকুলের আবাস সেইসাথে রয়েছে এনডাও ও রমপিন নদীর মধ্যে জলবিভাজিকা । প্রকৃতি প্রেমীরা এখানে বিভিন্ন কার্যকলাপের মাধ্যমে আনন্দ উপভোগ করতে পারেন যেমন ক্যাম্পিং, গ্রাম্যপথে হাঁটা, ডিঙিতে চড়া, গুহা দেখা, পাহাড়ে ওঠা এবং পাখি দেখা। পার্কের মধ্যে একশ পঞ্চাশ মিলিয়ন বছরের পুরনো ক্রান্তীয় বনে একদম দেশীয় কিছু দুষ্প্রাপ্র উদ্ভিদ ও প্রাণী রয়েছে। এর মধ্যে কয়েকটি হলো সুমাত্রার গন্ডার, পত্রবানর, হাতি, লম্বা লেজওয়ালা তোতা, দীর্ঘ সাদা হাতওয়ালা বানর এবং বাঘ। এই প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের রক্ষাকল্পে, কেউ এখানে ভ্রমণ করতে চাইলে প্রথমে কুয়ালা রমপিন পুলিশ ডিপার্টমেন্ট ও জহর জাতীয় পার্ক করপোরেশন থেকে বিশেষ পাস নিতে হয়। নভেম্বর থেকে মার্চ মাস এই পার্ক বন্ধ থাকে সুতরাং এই মাসগুলিতে এই পার্কে ভ্রমণ করা যায় না।

স্টেট সেক্রেটারিয়েট ভবন

ডেপুটি হিলে (বুকিত টিমবালান) অবস্থিত এই ভবন ১৯৪০ সালে নির্মিত হয় এবং সেক্রেটারিয়েট এবং সরকারী অন্যান্য বিভাগ এখানে রয়েছে। গ্রান্ড হলে সারাসিন নকশা ও মোজাইক চিত্র সারা জহরে এই ভবনকে বিশেষ আকর্ষণ দান করেছে।

রাজকীয় আবু বকর গ্রান্ড প্রাসাদ

এই বিশাল প্রাসাদ ৫৩.৮ হেক্টর জুড়ে ছড়ানো সেসাথে রয়েছে সুন্দর ঘাসছাটা লন। এই প্রাসাদ নিও-ক্লাসিক যুগের স্থাপত্য-শৈলী চিত্রিত। এখানে অনেক জহর রাজকীয় পরিবারের নৃতাত্বিক নিদর্শন রয়েছে যেগুলি সুলতান আবু বকর ও তাঁর পুত্র এবং সুলতান ইব্রাহিম তাদের ভ্রমনের সময় সংগ্রহ করেছেন। একটি জাপানী উদ্যান ও একটি জাপানী চা-বাগানের রেপ্লিকা রয়েছে প্রাসাদের কাছে, যেটা হলো জহরের সুলতানের প্রতি জাপানের ক্রাউন প্রিন্সের পক্ষ থেকে একটা উপহার ।

Read more:
আলোর সেতার ভ্রমণ গাইড

কেদাহ এর রাজধানী আলোর সেতার উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত মালয়েশিয়ার প্রাচীনতম সালতানাতের অন্যতম। মালয় ভাষায় আলোর সেতার এর অর্থ হলো ছোট ঢেউ। Read more

পুত্রজায়া ভ্রমণ গাইড

মালয়েশিয়ার ফেডারেল সরকারের রাজধানী হিসেবে কুয়ালা লামপুরের জায়গায় পুত্রজায়াকে বেছে নেয়া হয় দেশের অর্থনীতি দ্রুত চাঙ্গা হয়ে ওঠার পর। কুয়ালা Read more

পেনাং ভ্রমণ গাইড

প্রাচ্যের মুক্তা’ হিসেবে পরিচিত পেনাং এশিয়ার বিখ্যাত দ্বীপ গন্তব্যের অন্যতম যেখানে আছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, জাকজমকপূর্ণ ঐতিহ্য, মহান আতিথেয়তা এবং প্রাচুর্য। Read more

enEnglish deGerman arArabic zh-hansChinese (Simplified) viVietnamese